Connect with us

মোহনবাগান

মোহনবাগান দিবসে উলুবেড়িয়ার মোহনবাগান পরিবারে অভিনব অন্নপ্রাশন

Published

on

রে স্পোর্টজ নিউজ ডেস্কঃ এক সামাজিক দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন উলুবেড়িয়ার মোহনবাগান দম্পতি। অরিন্দম এবং সুপর্ণা দুজনেই আদ্যান্ত মোহনবাগানী। আর তাদের সন্তান যে মোহনবাগান সমর্থক হয়েই জন্ম নেবেন সেটা বলার অপেক্ষা রাখেনা। মোহনবাগান মানেই যেন আবেগ, ভালোবাসা, ঐতিহ্য এবং পরম্পরার মেলবন্ধন। মোহনবাগান মানে প্রাণ ঢালা আবেগ। সেই আবেগের রেশ ধরেই ২৯ জুলাই মোহনবাগান দিবসে হাওড়া উলুবেড়িয়ার বাসিন্দা তথা মোহনবাগান ক্লাব সদস্য অরিন্দম বন্দ্যোপাধ্যায় ও তাঁর স্ত্রী সুপর্ণা বন্দ্যোপাধ্যায়ের যমজ সন্তান পুত্র অগ্নীশ্বর (লিও) ও কন্যা দেবপর্ণার (ওলি)-র অন্নপ্রাশন হল। আর সমগ্র অনুষ্ঠানটিতে ছিল রীতিমত সবুজ মেরুনের ছোঁয়া। “সবুজ-মেরুন” দম্পতি তাঁদের যমজ পুত্র-কন্যার অন্নপ্রাশনের কার্ড থেকে শুরু করে ডেকরেশন সবেতেই তুলে ধরেছিলেন মোহনবাগানকে।

অরিন্দম জানান, “মোহনবাগান পরিবারে জন্মগ্রহণ মানেই জন্মগতভাবে মোহনবাগানী হয়েই জন্মানো। আমাদের সন্তানদের জন্য সেই পরম্পরার ভিত প্রস্তুত হলো আজ।” উল্লেখ্য, অরিন্দম ও সুপর্ণার পুত্র অগ্নীশ্বরের নিয়মমাফিক অন্নপ্রাশন হয় গত ২৮ জুন আর কন্যা দেবপর্ণার অন্নপ্রাশন হয় একমাস পর চলতি মাসের ২৭ তারিখ। তারপর মোহনবাগান দিবসের সন্ধ্যায় এমন অভিনব আনুষ্ঠানিক আয়োজন।

অরিন্দমের স্ত্রী সুপর্ণা দেবী জানান, “আমাদের পুত্র ও কন্যা একসঙ্গে হবার পর থেকেই অনেকে বলেছিলেন একসঙ্গে ওরা জন্মগ্রহণ করলেও মুখেভাত হবে আলাদা আলাদা। এবং আমাদের পুত্রের নান্দীমুখ বা বৃদ্ধি সংস্কার হলেও কন্যার কোনও নান্দীমুখ হবে না। যা হবে সেই বিবাহের সময়। নান্দীমুখ আদতে একটি অন্নপ্রাশনের সংস্কার। যা আমাদের সমাজে কেবলমাত্র পুত্রসন্তান জন্ম হলেই হয়ে আসে। আর এটার ফলে পিতৃকুল ও মাতৃকুলের তিন পুরুষ জল পান এবং তারা স্বর্গ থেকে আশীর্বাদ করেন। এটি শোনার পর থেকে আমরা ভাবতে থাকি তবে কি আমাদের শুধুই পুত্রের নান্দীমুখ ও বৃদ্ধি সংস্কার হবে আর তার সময় আমাদের পূর্ব পুরুষ জল পাবে? সমাজের এই লোকাচার নিয়ম আমরা শাস্ত্রমতেই ভাঙতে সক্ষম হই আমাদের কন্যার অন্নপ্রাশনে। আসলে আমাদের শাস্ত্রে পরিষ্কার উল্লেখ আছে কন্যা সন্তান হলেও তারও নান্দীমুখ ও বৃদ্ধি সংস্কার সম্ভব। কিন্ত অনেকেই এই নিয়ম না মেনে কন্যা হলে তার নান্দীমুখ সেই বিবাহের সময়েই করে। আমরা আমাদের কন্যার নান্দীমুখ অন্নপ্রাশনে করে একটা সামাজিক বার্তা তুলে ধরার চেষ্টা করেছি যে, কন্যা হলেও শাস্ত্রমতেই তার এই সংস্কার করা উচিত।”

প্রিয় দলের জন্য আবেগ বোধহয় একেই বলে। জীবনের প্রতিটি চলার পথে ব্যাতিক্রমী সিদ্ধান্ত নিয়ে মোহনবাগান আবেগ বুকে করে জীবন তরী পার করছে কোটি কোটি সবুজ মেরুন সমর্থক। তাদেরই এক প্রতিনিধি অরিন্দম-সুপর্ণা।

Continue Reading
Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ফুটবল

নতুন কিট স্পনসর মোহনবাগানে?

Published

on

রে স্পোর্টজ নিউজ ডেস্ক: নতুন মরসুমে নতুন কিট স্পনসরের সঙ্গে গাঁটছরা বাঁধতে চলেছে মোহনবাগান। এতদিন কিট স্পনসর হিসেবে মোহনবাগানের জার্সিতে দেখা যেত নিভিয়া কোম্পানির নাম। আসন্ন মরসুমে মোহনবাগানে কিট স্পনসর হতে পারে আমেরিকার এই বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান স্কেচার্স। বর্তমানে ইন্ডিয়ান ওমেন্স প্রিমিয়ার লিগে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের মহিলা দলের কিট স্পনসর রয়েছে এই সংস্থাটি। এবার হয়তো মোহনবাগানের হাত ধরে ফুটবলের ময়দানে পদার্পণ করতে পারে স্কেচার্স। শুধু তাই নয়, পাশাপাশি ভারতীয় ফুটবল দলের অধিনায়ক সুনীল ছেত্রী একটি পোস্ট করেছেন ইন্সটাগ্রামে। যেখানে তাকে এই স্কেচার্সের জার্সি পড়ে দেখা যায়। জার্সি থেকে জুতো, সর্বত্রই স্কেচার্সের নাম। সেই স্কেচার্স কোম্পানির সঙ্গেই কথাবার্তা বলছে মোহনবাগান টিম ম্যানেজমেন্ট। সুনীল ছেত্রীর এই পোস্ট জল্পনা আরও বাড়িয়েছে, তাহলে সত্যিই ফুটবলের ময়দানে আসতে চলেছে স্কেচার্স?

Continue Reading

আইএসএল

মেগা ফাইনালের আগে দিমিত্রিদের পাশে বাগানের “সবুজ তোতা”

Published

on

রে স্পোর্টজ নিউজ ডেস্ক: মোহন জনতার নয়নমণি তিনি। সবুজ-মেরুন জার্সিতে বহু যুদ্ধের নায়ক। তিনি হলেন জোসে র‍্যামিরেজ ব্যারেটো। মোহনবাগান সমর্থকদের কাছে তিনি অতি পরিচিত ‘সবুজ তোতা’ নামে। শনিবার যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনের আরও একটা মহারণে নামছেন দিমিত্রি-কামিন্সরা। আইএসএল মেগা ফাইনালের আগে দিমিত্রিদের লড়াইয়ের শরিক হয়ে উঠলেন ‘সবুজ তোতা’। রে স্পোর্টজকে দেওয়া একান্ত সাক্ষাতকারে তিনি জানালেন “মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে ফেভারিট হিসেবেই মাঠে নামবে মোহনবাগান। হাবাসের দলের সবচেয়ে বড় শক্তি হল তাঁদের ধারাবাহিকতা। কোচ হিসেবে হাবাস কখনোই আপোষ করেননা।”

মুম্বইয়ের ত্রিফলা আক্রমণের বিরুদ্ধে আঁটোসাটো রাখতে হবে বাগান রক্ষণ। এই বিষয় ব্যারেটো জানালেন “হাবাস যখনই আক্রমণে যান, নিজের রক্ষণ অটুট রেখেই তবে আক্রমণে যান। হাবাসের তত্ত্বাবধানে দুরন্ত ফুটবল খেলছে মোহনবাগান। এই দলে ম্যাচের রঙ বদলে দেওয়ার মতো অনেক খেলোয়াড় রয়েছে।” তিনি আরও বলেন “মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে এই ম্যাচ অবশ্যই চাপের। তবু লক্ষ্যে অবিচল থেকে দিমিত্রিদের লড়াই করতে হবে। আর সব থেকে বড় কথা সমর্থকদের নব্বই মিনিট দলের জন্য গলা ফাটাতে হবে। তবেই মোহনবাগান চ্যাম্পিয়ন হতে পারবে।”

Continue Reading

আইএসএল

ফাইনালের আগে দুঃসংবাদ মোহনবাগানে

Published

on

রে স্পোর্টজ নিউজ ডেস্ক: রবিবার রাতেই ওড়িশা এফসিকে হারিয়ে আইএসএল ফাইনালের টিকিট হাতে পেয়েছে মোহনবাগান। তবে এই জয়ের চব্বিশ ঘন্টার মধ্যেই একটা দুঃসংবাদ বয়ে আনল সবুজ-মেরুন শিবিরে। আইএসএল ফাইনালে এক গুরুত্বপূর্ণ বিদেশি ফুটবলারকে পাবেন না আন্তোনিও লোপেজ হাবাস। ওড়িশা এফসির বিরুদ্ধে প্রথম লেগের সেমিফাইনালে লাল কার্ড দেখেছিলেন আর্মান্দো সাদিকু। যার জন্যই ওড়িশার বিরুদ্ধে ফিরতি লেগের ম্যাচে মাঠে নামতে পারেননি তিনি। ওড়িশা এফসির বিরুদ্ধে সেমিফাইনালে লাল কার্ড দেখার জেরে সর্বভারতীয় ফুটবল ফেডারেশনের শৃঙ্খলা রক্ষা কমিটি চার ম্যাচের জন্য নির্বাসন আরোপ করেছে মোহনবাগানের বিদেশী ফুটবলার আর্মান্দো সাদিকুর উপর। এর ফলে আইএসএল ফাইনালেও সাদিকুকে পাবে না মোহনবাগান।

Continue Reading

Trending