Connect with us

ফুটবল

Super Cup 2024: পিছিয়ে থেকে ইস্টবেঙ্গলকেই ফেভারিট মানছেন ক্লিফোর্ড মিরান্ডা

Published

on

সৌমজিৎ দে, ভুবনেশ্বর: লড়াইটা হতে পারত হাবাস বনাম কুয়াদ্রাত, দুই ক্ষুরধার মস্তিষ্কের লড়াই। কিন্তু কোচ হিসাবে হাবাসের নাম রেজিষ্ট্রেশন না হওয়ায় শুক্রবার মেগা ডার্বিতে ডাগ আউটে বসবেন ক্লিফোর্ড মিরান্ডা। রাত পোহালেই ভুবনেশ্বরের কলিঙ্গ স্টেডিয়ামে মাঠে নামবে কলকাতার দুই হেভিওয়েট দল। এটি মরশুমের তৃতীয় ডার্বি। দু’পক্ষই একটি করে ডার্বি জিতেছে। ফলাফল এখন ১-১। তাই মরশুমের তৃতীয় ডার্বি জিতে এগিয়ে যেতে চাইছে দুই দল। জুয়ান ফেরান্দোর ছাঁটাইয়ের পর ক্লিফোর্ড মিরান্ডার তত্ত্বাবধানেই ঘুরে দাঁড়ানোর লক্ষ্য নিয়ে সুপার কাপ খেলতে গিয়েছে মোহনবাগান। দুটি ম্যাচ জিতলেও দলের যা অবস্থা তাতে পিছিয়ে থেকেই ডার্বি খেলতে নামবে মোহনবাগান। প্রথম একাদশের প্রায় ৯ জন ফুটবলারকে ছাড়াই মাঠে নামছে মোহনবাগান। লম্বা তালিকা। শুভাশিস বসু, বিশাল কেইথ, লিস্টন কোলাসো, সাহাল আব্দুল সামাদ, অনিরুদ্ধ থাপা, দীপক টাংরি, মনবীর সিংরা রয়েছেন দোহায়। এখানেই শেষ নয়, আশিক কুরুনিয়ান এবং আনোয়ার আলি চোটের জন্য মাঠে নামতে পারছেন না। যা অবস্থা তাতে না থাকা ফুটবলারদের নিয়েও একটা দল নামিয়ে দেওয়া যেতে পারে।

এমতবস্থায় যে কোন দলই গুটিয়ে থেকে মেগা ডার্বি খেলতে নামার কথা। কিন্তু সবুজ-মেরুনের দায়িত্বে থাকা ক্লিফোর্ড মিরান্ডা কিন্তু ডার্বির আগে কিছুটা মাইন্ড গেম খেলছেন। বৃহস্পতিবার সাংবাদিক সম্মেলনে এসে ক্লিফোর্ড পরিষ্কার স্বীকার করলেন এই ডার্বি ইস্টবেঙ্গল না জিতলে তিনি অবাক হবেন। পরিস্থিতির নিরিখে অনেকটাই এগিয়ে রয়েছে ইস্টবেঙ্গল। তবে এটা ডার্বি। এখানে কোন অঙ্ক খাটে না। সুপার কাপের পরের রাউন্ডে পৌঁছাতে হলে জিততেই হবে মোহনবাগানকে। সুপার কাপের প্রথম দুই ম্যাচেই গোল হজম করতে হয়েছে বাগান রক্ষণকে। তবুও ডার্বির আগে ক্লিফোর্ড মিরান্ডা বললেন “রক্ষণ নিয়ে আমি চিন্তিত নই। ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধে ডার্বি জিততে হলে আমাদের সবটা গুছিয়ে মাঠে নামতে হবে। তার মধ্যে রক্ষণ একটা বিশেষ অংশ।” তবে ক্লিফোর্ড মানছেন এই দল নিয়েও ডার্বি জেতা সম্ভব। পরিকল্পনা মাফিক ফুটবল খেলে আগামীকাল ভুবনেশ্বরের কলিঙ্গ স্টেডিয়ামে ডার্বি জিতেই মোহনবাগান মাঠ ছাড়বে বলে তার বিশ্বাস। তবে ডাগ আউটে না থাকলেও গ্যালারিতে উপস্থিত থাকবেন আন্তোনিও লোপেজ হাবাস। হাবাসের অন্তর্ভুক্তি দলের মনোবল ফিরিয়ে আনবে বলেই বিশ্বাস ক্লিফোর্ডের। তিনি আরও বললেন “দল এখন একটা ট্রাঞ্জিশন পিরিয়ডের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য সময় দিতে হবে।”

ক্লিফোর্ড মিরান্ডা মনে করছেন দলের প্রতিটি ফুটবলার ৯০ মিনিট লড়াই করছে। আর সেই কারণেই গত ম্যাচে ৯৩ মিনিটে গিয়ে জয়সূচক গোলটি পেয়েছে মোহনবাগান। তাই পিছিয়ে থাকলেও আশা ছাড়তে নারাজ মোহনবাগানের সহকারী কোচ। বাগান রক্ষণের অন্যতম ভরসা ব্রেন্ডন হ্যামিল বললেন “ডার্বিতে খেলার জন্য আলাদা করে কোন মোটিভেশানের প্রয়োজন হয় না। আমরা একটা দল হিসাবে উন্নতি করছি। রক্ষণ থেকে আক্রমণ সব জায়গাতেই সজাগ থাকতে হবে আমাদের।” ডার্বির গুরুত্ব কতটা সেটা জানেন হ্যামিল, এই প্রতিযোগিতায় কোন জায়গায় দাঁড়িয়ে মোহনবাগান সেটাও জানেন তিনি। গত ম্যাচে তার ভুল থেকেই গোল হজম করেছিল মোহনবাগান। আসন্ন সুপার কাপ ডার্বিতে রক্ষণে দায়িত্ব নিতে প্রস্তুত ব্রেন্ডন হ্যামিল।

ফুটবল

জুনিয়র ব্রিগেডে বাড়তি নজর মোহনবাগানের

Published

on

রে স্পোর্টজ নিউজ ডেস্ক: রিলায়েন্স ফাউন্ডেশন ডেভেলপমেন্ট লিগ, সেখান থেকে কলকাতা লিগ, আর তারপর কোচের নজরে পড়লেই সোজা প্রমোশন আইএসএলের সিনিয়র দলে। এভাবেই উঠে এসেছেন দীপেন্দু, ফারদিন, কিয়ান, সুহেলরা। মোহনবাগান টিম ম্যানেজমেন্ট এর প্রধান লক্ষ্য নতুন মুখ তৈরি করা। যারা ভবিষ্যতের তারকা হয়ে উঠবে। তাই আরএফডিএল এবং কলকাতা লিগকে নতুন ফুটবলার তুলে আনার প্ল্যাটফর্ম হিসাবে কাজে লাগাতে চাইছেন বাস্তব রায়। আসন্ন মরসুমের জন্য কেরালার তরুন উইঙ্গার সালাউদ্দিন আদনানকে দু’বছরের চুক্তিতে সই করাল মোহনবাগান।

গত মরসুমে মুথুট এফসিতে খেলেছেন তিনি। আগামী মাসেই শুরু হতে চলেছে কলকাতা লিগ। আর সেখানেই হয়তো সবুজ-মেরুন জার্সিতে অভিষেক হতে পারে আদনানের। আরেফডিএল এবং কলকাতা লিগের দলে খেলবেন আদনান। নিজেকে মেলে ধরতে পারলে সিনিয়র দলে উঠে আসার বড় সুযোগ রয়েছে কেরালার এই তরুণ উইঙ্গারের সামনে। পাশাপাশি দু’বছরের চুক্তিতে ইউনাইটেড স্পোর্টসের তরুণ ফুটবলার সায়ন দাসকে সই করাল মোহনবাগান। গত মরশুমে বেশ নজর কেড়েছিলেন সায়ন। আরএফডিএল এবং সিএফএলের কথা মাথায় রেখেই তরুণ ফুটবলারদের সই করাচ্ছে বাগান ব্রিগেড। গোয়ার তরুণ ডিফেন্ডার লিওয়ান কাস্তানাকে সই করিয়েছেন তাঁরা। ফলে বোঝাই যাচ্ছে জুনিয়র ব্রিগেডকে বাড়তি গুরুত্ব দিচ্ছে সবুজ-মেরুন টিম ম্যানেজমেন্ট। প্রসঙ্গত, জুন মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকেই কলকাতা লিগের প্রস্তুতিতে নেমে পড়বে মোহনবাগান।

Continue Reading

ফুটবল

ভারতকে তৃতীয় রাউন্ডে নিয়ে যেতে আশাবাদী থাপা

Published

on

রে স্পোর্টজ নিউজ ডেস্ক: জাতীয় দলের হয়ে ৫০ টার বেশি ম্যাচ খেলা সহজ কথা নয়। কিন্তু সেটা সম্ভব করে দেখিয়েছেন ভারতীয় মিডফিল্ডার অনিরুদ্ধ থাপা। থাপার বয়স এখন ২৬। ইতিমধ্যেই জাতীয় দলের জার্সিতে ৫৭ টি ম্যাচ খেলে ফেলেছেন। সুনীল ছেত্রী এবং গুরপ্রীত সিং সান্ধুর পর তিনি তৃতীয় প্লেয়ার, যিনি জাতীয় দলের হয়ে ৫০টির বেশি ম্যাচ খেলেছেন। কুয়েতের বিরুদ্ধে বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জন পর্বের ম্যাচের আগে দলের পারফরমেন্স নিয়ে আশাবাদী ভারতের এই মিডফিল্ডার।

সাত বছর জাতীয় দলের সঙ্গে আছেন। এই সাত বছরে একটি ও জাতীয় দলের শিবিরে অনুপস্থিত থাকেননি তিনি। কুয়েত ম্যাচের প্রসঙ্গে তিনি বললেন “এই ম্যাচটা আমাদের কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তৃতীয় রাউন্ডে পৌঁছানোর জন্য এই ম্যাচটা আমাদের জিততেই হবে। শুধু তাই নয়, সুনীল ছেত্রীকে জয় উপহার দিতে চাই শেষ ম্যাচে।” থাপা মনে করছেন যুবভারতীর ভরা গ্যালারির সামনে নিজেদের সেরাটা উজার করে দিতে পারলেই কাঙ্খিত জয় আসবে।

Continue Reading

ফুটবল

২৭ জনের দল ঘোষণা করলেন স্টিমাচ

Published

on

রে স্পোর্টজ নিউজ ডেস্ক: কুয়েতের বিরুদ্ধে বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জন পর্বের ম্যাচে মাঠে নামার আগে ভুবনেশ্বরে জোরকদমে প্রস্তুতিতে মগ্ন স্টিমাচ ব্রিগেড। সুনীল ছেত্রীর বিদায়ী ম্যাচ হিসেবে এই ম্যাচের আলাদা গুরুত্ব রয়েছে। কুয়েতের বিরুদ্ধে মাঠে নামার আগে ২৭ সদস্যের ভারতীয় দল ঘোষণা করলেন জাতীয় দলের হেড কোচ ইগর স্টিম্যাচ। ভুবনেশ্বরের ক্যাম্প থেকে লাচেনপা,পার্থিব গোগোই, ইমরান খান, মহম্মদ হামাদ এবং এমএস জিতিনকে বাদ দেওয়া হয়েছে। ২৯ মে পর্যন্ত তারা ভুবনেশ্বরে অনুশীলন করে কলকাতার উদ্দেশ্য রওনা দেবেন সুনীল ছেত্রীরা। কলকাতার আবহাওয়ার সাথে মানিয়ে নিতে আগেভাগেই শহরে পা রাখবেন তাঁরা। লক্ষ্য একটাই কলকাতার মাটিতে কুয়েতকে হারিয়ে বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জন করবে তৃতীয় রাউন্ডে জায়গা করে নেওয়া। পাশাপাশি সুনীল ছেত্রীর বিদায়ী ম্যাচে তাঁকে জয় উপহার দেওয়া।

Continue Reading

Trending