Connect with us

ফুটবল

বৃষ্টিস্নাত কান্তিরাভায় দুরন্ত জয় দিয়ে সাফ কাপের অভিযান শুরু করল ভারত

Published

on

রে স্পোর্টজ নিউজ ডেস্কঃ ১৪তম সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানের মুখোমুখি হয়েছিল ভারত। বেঙ্গালুরুর কান্তিরাভা স্টেডিয়ামে অন্যতম ফেভারিট দল হিসাবেই মাঠে নেমেছিলেন সুনীলরা। সদ্য হিরো ইন্টারকন্টিনেন্টাল কাপ জিতে চনমনে ভারতীয় শিবির। সেই জয়ের ছাপ স্পষ্ট লক্ষ্য করা গেল ভারতীয় দলের খেলায়। দূর্বল প্রতিপক্ষ পাকিস্তানের বিরুদ্ধে কার্যত আধিপত্য বজায় রেখেছিলেন সুনীল ছেত্রীরা। ম্যাচের শুরুতেই সহজ সুযোগ থেকে প্রথম গোলটি তুলে নেয় ভারত। ম্যাচের বয়স যখন ১০ মিনিট পাকিস্তান গোলরক্ষকের মিস পাস থেকে সহজ বল জালে জড়াতে ভুল করেননি ভারতীয় দলের অধিনায়ক সুনীল ছেত্রী। কিছুক্ষণ পরেই আবারও সুযোগ চলে আসে ভারতের কাছে। পাকিস্তান রক্ষণের খেলোয়াড় নিজেদের বক্সে হ্যান্ডবল করে বসেন। পেনাল্টি উপহার পায় ভারত। পেনাল্টি থেকে পাকিস্তান গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন সুনীল ছেত্রী। জোড়া গোল করে প্রথমার্ধেই দলকে এগিয়ে দেন ভারত অধিনায়ক। মুহুর্মুহু আক্রমণে পাকিস্তান রক্ষণ যখন দিশেহারা তখন ভারতের বিপক্ষে হঠাৎই প্রথম বিপদজনক আক্রমণটি উঠে আসে। ম্যাচের ২৯ মিনিটের মাথায় বক্সের সামনে সহজ সুযোগ নষ্ট না করলে ব্যবধান কমাতে পারত পাকিস্তান। সুনীল ছেত্রীর কাছে সুযোগ ছিল প্রথমার্ধেই নিজের হ্যাটট্রিক সম্পূর্ণ করার। ১৮ গজ বক্সের একেবারে সামনে ফ্রি কিক পায় ভারত। যদিও সেই সুযোগ কাজে লাগাতে ব্যর্থ হন সুনীল ছেত্রী।

প্রথমার্ধের বাঁশি বাজার কিছু আগে বচসায় জড়িয়ে পড়েন দুই দলের খেলোয়াড়েরা। সাইড লাইন অতিক্রম করে যাওয়া একটি বল থ্রো ইন করতে যায় পাকিস্তানের এক খেলোয়াড়। আচমকাই তাকে বাধা দেন ভারতীয় দলের কোচ ইগর স্টিম্যাচ। উত্তেজিত হয়ে পড়েন পাকিস্তান ফুটবলাররা। শেষ পর্যন্ত রেফারি এসে পরিস্থিতি শান্ত করে। হলুদ কার্ড দেখতে হয় সন্দেশ ঝিঙ্গান, এবং পাকিস্তানের এক খেলোয়ারকে। অহেতুক উত্তেজিত হয়ে লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়তে হল কোচ ইগর স্টিম্যাচকে। ২-০ গোলে এগিয়ে থেকে প্রথমার্ধের বিরতিতে যায় ভারত। ইতিহাসের শুরুতেই পরপর দুবার সুযোগ চলে এসেছিল ভারতীয় দলের কাছে। সহজ সুযোগ নষ্ট করেন আশিক কুরুনিয়ান এবং সামাদ। গোলের একেবারে সামনে থেকে মিস কিক করেন সাহাল আব্দুল সামাদ। ম্যাচের বয়স যখন ৫৫ মিনিট আবারও একটা সুযোগ চলে এসেছিল পাকিস্তানের কাছে। শেষ পর্যন্ত ভারতীয় রক্ষণের তৎপরতায় যাত্রায় মুক্তি পায় ভারত। দ্বিতীয়ার্ধে তুলনামূলকভাবে আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলতে দেখা যায় পাকিস্তানকে। যদিও ৬৬ মিনিটের মাথায় জিকশনের হেডার ক্রস বারে লেগে ফিরে না আসলে ব্যবধান বাড়াতেই পারতো ভারত। তবে বৃষ্টিস্নাত কান্তিরাভায় খেলার গতি বারবার মন্থর হয়ে পড়ছিল। আজ বাঁদিক দিয়ে বেশ সপ্রতিভ দেখাল আশিক কুরুনিয়ানকে। বেশ কয়েকবার ভালো বল নিয়ে উঠে আসতে দেখা গেল তাকে।

ম্যাচের ৭৩ মিনিটের মাথায় আবার সুযোগ পেয়ে যায় ভারত। ডান দিক থেকে বল নিয়ে উঠে আসছিলেন সুনীল ছেত্রী। বক্সের মধ্যে তাকে পিছন থেকে ফাউল করেন মহম্মদ সুফিয়ান। পেনাল্টির সিদ্ধান্ত দিতে এক মুহূর্ত দেরি করেননি রেফারি। আবারও গোলার মত শটে পাক গোলরক্ষককে পরাস্ত করে নিজের হ্যাটট্রিক সম্পূর্ণ করলেন সুনীল ছেত্রী। ডান প্রান্ত ব্যবহার করে বারবার আক্রমণে উঠে এলেন ছাংতে, অনিরুদ্ধ থাপারা। দ্বিতীয়ার্ধেও সেই আক্রমণের ভাঁজ বজায় রেখেছিল ঝাঁঝ বজায় রেখেছিল ভারত। ৮১ মিনিটের মাথায় পাকিস্তানের কফিনে শেষ পেরেকটি পুঁতলেন উদান্তা। আনোয়ার আলির লং পাস রিসিভ করে একাই গোলকিপারকে পরাস্ত করলেন তিনি। ৪-০ গোলে ম্যাচ জিতে মাঠ ছাড়ল ভারতীয় দল।

ফুটবল

ক্যাপ্টেনকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছে গোটা দেশ

Published

on

রে স্পোর্টজ নিউজ ডেস্ক: সুনীল ছেত্রী শুধু একটা নাম নয়, ভারতীয় ফুটবলের আবেগ। বৃহস্পতিবার সকালেই নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের অবসরের কথা জানিয়েছেন ভারতীয় ফুটবল দলের অধিনায়ক। আগামী ৬ জুন যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে কুয়েতের বিরুদ্ধে বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জন পর্বের ম্যাচ খেলতে নামবে ভারত। এই ম্যাচেই শেষ বারের মতো জাতীয় দলের জার্সিতে দেখা যাবে সুনীলকে। বিদায়বেলায় সুনীলকে নিয়ে আবেগঘন বার্তা দিলেন তার সতীর্থরা। ফুটবলের ময়দান ছাড়িয়ে সুনীলের জন্য শুভেচ্ছা পাঠাচ্ছেন ক্রিকেট দুনিয়ার ব্যক্তিত্বরা।

সুনীল ছেত্রীর খুব কাছের বন্ধু বিরাট কোহলি। বন্ধুর বিদায়বার্তা জানতে পেরেই তাঁকে শুভেচ্ছা জানালেন বিরাট। বললেন “ভাই, তোমার জন্য আমি গর্বিত।” আইপিএল চলাকালীন আরসিবির শিবিরেও দেখা গিয়েছিল ছেত্রীকে। সুনীলের সতীর্থ গুরপ্রীত বললেন “এই দিনটা দেখার অপেক্ষায় ছিলাম না। ৬ জুন গোটা দেশ তোমার অবসর উদযাপন করবে। তুমিই সবার সেরা অধিনায়ক।” অন্যদিকে ভারতীয় ফুটবল সংস্থা বা ক্রিকেট বোর্ড, সকলেই শুভেচ্ছা জানালেন সুনীলকে। প্রায় দুই দশক ভারতীয় ফুটবলের প্রতিনিধিত্ব করে সুনীল এখন জাতীয় আইকন।

Continue Reading

ফুটবল

ভারতীয় ফুটবলে সুনীল যুগের অবসান

Published

on

রে স্পোর্টজ নিউজ ডেস্ক: ভারতীয় ফুটবলে শেষ হতে চলেছে একটি অধ্যায়। যে অধ্যায়ের নাম সুনীল ছেত্রী। চিরতরের জন্য বুট জোড়া তুলে রাখার সিদ্ধান্ত নিলেন তিনি। আর অবসরের জন্য বেছে নিলেন তার প্রিয় শহর কলকাতাকেই। আগামী ৬ জুন কলকাতার যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে কুয়েতের বিরুদ্ধে বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জন পর্বের ম্যাচ খেলবে ভারত। এই ম্যাচটাই জাতীয় দলের জার্সিতে শেষ ম্যাচ হতে চলেছে সুনীলের। ২০০৫ সালে ভারতের জাতীয় দলে অভিষেক হয়েছিল তাঁর। দেশের হয়ে প্রথম ম্যাচেই গোল পেয়েছিলেন সুনীল। এরপর অনেক চড়াই-উতরাই পেড়িয়ে ৩৯ বছর বয়সে নিজের ফুটবল জীবনে ইতি টানলেন।

বৃহস্পতিবার সকালে নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও পোস্ট করে নিজের অবসরের কথা জানান ভারত অধিনায়ক। অবসর ঘোষণার দিনে জাতীয় দলে অভিষেকের স্মৃতি রোমন্থন করে বললেন “একটা দিনের কথা কখনোই ভুলব না। যে দিন দেশের জার্সি গায়ে প্রথম বার ভারতের হয়ে খেলতে নেমেছিলাম। সেই অনুভূতিটাই আলাদা।” সেখান থেকেই শুরু। ধীরে ধীরে নিজেকে ভারতের সেরা স্ট্রাইকার করে তুলেছেন। ভারতীয় ফুটবলে বহু কোচ বদল হয়েছে। কিন্তু কেউই সুনীলকে ছাড়া দল গড়তে পারেননি। এখনও সূনীলের যোগ্য উত্তরসূরী খোঁজার কাজ চলছে। তাই বলাই যায় সুনীল ছেত্রীর অবসর মানে, ভারতীয় ফুটবলে একটা যুগের অবসান। প্রায় দুই দশক ধরে ভারতীয় ফুটবলের পতাকা উড্ডীন করেছিলেন সুনীল ছেত্রী।

Continue Reading

ফুটবল

ভারতীয় অ্যাকাডেমির ফুটবলার যোগ দিচ্ছেন ব্ল্যাকবার্ন রোভার্সে

Published

on

রে স্পোর্টজ নিউজ ডেস্ক: ভারতীয় ফুটবল প্রেমীদের জন্য এ এক দারুণ খবর। মুম্বই সিটি অ্যাকাডেমির ছাত্র যোগ দিচ্ছেন ইংল্যান্ডের নামকরা ক্লাবে। অনূর্ধ্ব ১৫ দলের হয়ে খেলার সময়ে ভারতীয় ফুটবল প্রেমীদের অনেকের নজর কেড়েছিলেন নিয়াল গোঘাভালা। এবার তিনি যোগ দিতে চলেছেন ইংল্যান্ডের ক্লাব ব্ল্যাকবার্ন রোভার্সে। মুম্বই সিটি ছাড়াও নিয়াল ‘বার্সা অ্যাকাডেমি মুম্বই’-এর ছাত্র। ব্ল্যাকবার্ন রোভার্স ইংলিশ চ্যাম্পিয়নশিপের দ্বিতীয় ডিভিশন ফুটবল ক্লাব। এর আগে মুম্বই সিটি এফসির অনূর্ধ্ব-১৫ দলের হয়ে এআইএফএফ জুনিয়র বয়েজ ন্যাশনাল ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নিয়েছিলেন নিয়াল গোঘাভালা।

Continue Reading

Trending