Connect with us

ক্রিকেট

শাপমুক্তি ঘটিয়ে ফাইনালে ভারত

Published

on

সৌরভ রায়; গায়ানা, ২৭ জুন – দীর্ঘ ১০ বছরের প্রতীক্ষার অবসান! বেশ কয়েকটি আইসিসি ইভেন্টের সেমিফাইনালে হারের জিঙ্কস কাটিয়ে অবশেষে ফের একবার ফাইনালে পৌঁছলো ভারত। গায়ানায় ইংল্যান্ডকে তারা ৬৮ রানে পর্যুদস্ত করল। ভারতের দেওয়া ১৭২ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে মাত্র ১০৩ রানেই গুটিয়ে যায় ইংরেজরা।

চলতি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালেও টসে হারেন ভারত অধিনায়ক রোহিত শর্মা। জস বাটলার ভারতকে প্রথমে ব্যাট করতে পাঠালে ইংল্যান্ডের সামনে ১৭২ রানের কঠিন লক্ষ্যমাত্রা রাখে টিম ইন্ডিয়া। নির্ধারিত কুড়ি ওভারে ৭ উইকেট খুইয়ে ১৭১ রান তোলেন রোহিতরা। এদিনও ওপেন করতে নেমে ব্যর্থ হন বিরাট কোহলি। মাত্র ৯ রানে বোল্ড হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন তিনি। এরপর কিছুক্ষণ খেলা হওয়ার পরেই ফের একবার বৃষ্টি নেমে ম্যাচে বিঘ্ন ঘটায়। যদিও ঘন্টাখানেক পরেই বৃষ্টি থেমে গিয়ে ফের খেলা শুরু হয়। ইংল্যান্ডের স্পিনাররা সেই সময় উইকেট থেকে ভালো সাহায্য পেলেও, যথেষ্ট ভালো ব্যাটিং করেন রোহিত এবং সূর্য কুমার যাদব।

প্রসঙ্গত সুপার এইটের শেষ ম্যাচেও অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে অনবদ্য ব্যাটিং করেছিলেন রোহিত। শুক্রবার ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে এমন কঠিন ব্যাটিং উইকেটেও নিজের ফর্ম জারি রাখলেন তিনি। ৩৬ বলে নিজের অর্ধশতরানে পৌঁছন রোহিত। শেষ পর্যন্ত ৩৯ বলে ৫৭ রান করে আউট হন তিনি। রোহিতকে যোগ্য সঙ্গ দেন সূর্য কুমার যাদব (৪৭)। শেষ দিকে হার্দিক পান্ডিয়ার ২৩, জাদেজার ১৭ এবং অক্ষর পটেলের ১০ রানের সৌজন্যে ১৭১ রানে পৌঁছয় ভারত। শিবম দুবে যদিও শূন্য রানেই ফিরে যান।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে দলের হয়ে শুরুটা দারুন করেন অধিনায়ক জস বাটলার। তবে অক্ষরের ওভারের প্রথম বলেই পন্থকে ক্যাচ দিয়ে ২৩ রানে ফিরে যান তিনি। তারপরে আর ম্যাচে ফিরতে পারেনি ইংল্যান্ড। নির্দিষ্ট ব্যবধানে উইকেট হারাতে থাকে তাঁরা। দলের আরেক ওপেনার ফিল সল্ট (৫), মঈন আলি (৮), জনি বেয়ারস্টো (০), স্যাম কারান (২) রানে ফিরে যান। হ্যারি ব্রুক কিছুটা লড়াই দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন, তবে তিনিও কুলদীপের বলে ২৫ রানে ফিরে যান। অনবদ্য বোলিং করেন ভারতীয় দলের স্পিনাররা। কুলদীপ ও অক্ষর ৩টি করে উইকেট নেন। বুমরাহ নেন দুটি উইকেট। ফাইনালে রবিবার ভারত প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে বার্বাডোজে খেলতে নামবে।

ক্রিকেট

হার্দিক নয়; অধিনায়ক হচ্ছেন সূর্য

Published

on

রে স্পোর্টজ নিউজ ডেস্ক: হার্দিক পান্ডিয়া নন, বরং সকলকে চমকে দিয়ে ভারতীয় টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক হওয়া দৌড়ে অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছেন সূর্য কুমার যাদব। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে, হার্দিককে টপকে আগামী ২০২৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পর্যন্ত ভারতীয় দলের অধিনায়কত্বের দায়িত্ব পেতে পারেন সূর্য কুমার যাদব।

প্রসঙ্গত শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে আসন্ন টি-টোয়েন্টি সিরিজে হার্দিক খেললেও, সূত্র মারফত জানা যাচ্ছে ভারতীয় দলের নতুন হেড কোচ গৌতম গম্ভীর এবং প্রধান নির্বাচক অজিত আগরকার সূর্যকে অধিনায়ক করার ব্যাপারে খুবই আগ্রহী। এমন নয় যে সূর্য এই প্রথম ভারতকে নেতৃত্ব দেবেন। এর আগে গত বছর অস্ট্রেলিয়া এবং দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি সিরিজেও ভারতীয় দলকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন সূর্য কুমার।

বিশ্বস্ত সূত্র মারফত জানা যাচ্ছে, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এই ব্যাপারে হার্দিকের সঙ্গে বিস্তারিত কথা বলেন গম্ভীর এবং আগরকার। তাঁরা হার্দিককে বোঝান যে দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা এবং দলে ভারসাম্য আনার জন্যই এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার পরিকল্পনা করছে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড। প্রসঙ্গত, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জেতার পরে রোহিত শর্মা টি-২০ ফরম্যাটে অবসর নেওয়ায় অধিনায়কের পদটি খালি হয়। সদ্য সমাপ্ত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারতের জয়ের পিছনে অন্যতম বড় ভূমিকা নিয়েছিলেন পান্ডিয়া। শুধু তাই নয় সেখানে ভারতের সহ অধিনায়কও ছিলেন তিনি। তাই হার্দিককে ভারতীয় টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক না করার সিদ্ধান্তে অনেকেই অবাক হয়েছেন। অন্যদিকে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে তিন ম্যাচের একদিনের সিরিজে ব্যক্তিগত কারণের জন্য খেলবেন না হার্দিক।

Continue Reading

ক্রিকেট

রোহিত-বিরাটদের চাইছেন গম্ভীর

Published

on

রে স্পোর্টজ নিউজ ডেস্ক: শ্রীলঙ্কা সফর থেকে ভারতীয় দলের দায়িত্ব নিতে চলেছেন গৌতম গম্ভীর। শুরুতেই ভারতীয় ক্রিকেটারদের জন্য কড়া বার্তা দিলেন রোহিতদের নতুন হেড স্যার। আসন্ন শ্রীলঙ্কা সফরে টি-টোয়েন্টি এবং ওডিআই সিরিজের জন্য দুটি আলাদা দল বাছাই করা হবে। দল বাছাইয়ের ক্ষেত্রে আগে থেকেই নিজের কড়া মনোভাব স্পষ্ট করলেন ভারতের নতুন হেড কোচ।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ের পর রোহিত, কোহলি এবং যশপ্রীত বুমরাহকে বিশ্রাম দিয়েছিল ভারতীয় বোর্ড। তবে সূত্র মারফত শোনা যাচ্ছে, তিন সিনিয়র ক্রিকেটারের ছুটি বাতিল করতে পারেন গৌতম গম্ভীর। পরের বছরের শুরুতেই চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি রয়েছে। আর তার জন্য এখন থেকেই প্রস্তুতি শুরু করে দিতে চান ভারতের নতুন কোচ। সূত্রের খবর, ক্রিকেটাররা এখনও গম্ভীরের কথায় চূড়ান্ত সিলমোহর দেননি। তবে জানা গেছে রোহিত ও কোহলি পরিবারের সঙ্গে বিদেশে সময় কাটাচ্ছেন।

আগামী ২৭ জুলাই থেকে শুরু হচ্ছে ভারতের শ্রীলঙ্কা সফর। এই সিরিজের জন্য দল ঘোষণা হলেই বোঝা যাবে রোহিত-বিরাটদের নিয়ে কী ভাবছেন ভারতের নতুন হেড কোচ। টি-টোয়েন্টি থেকে অবসর নিয়েছেন রোহিত, বিরাটরা। তবে একদিনের ক্রিকেটে এখনও সক্রিয় রয়েছেন তাঁরা। গৌতম গম্ভীর আপোষ করতে পারেননা, তার উদাহরণ ইতিমধ্যেই পেয়েছে ক্রিকেট মহল। আগামী দিনে ভারতীয় দলের কোচ হিসাবে তিনি যে আপোষহীনতার পথেই হাঁটবেন তা এখন থেকেই বলে দেওয়া যায়। গম্ভীর জানিয়েছেন “শ্রীলঙ্কা সফরের পর দীর্ঘদিন আর কোনো ওডিআই সিরিজ নেই। তাই তিনি এই সিরিজে রোহিত, বুমরাহ ও বিরাটকে চাইছেন।”

বর্তমানে ভারতীয় ক্রিকেট দল একটা সন্ধিক্ষণে দাঁড়িয়ে রয়েছে। শোনা যাচ্ছে আসন্ন চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির পরে একদিনের ক্রিকেটে আর দেখা যাবে না রোহিত-বিরাটদের। বিরাট এই ব্যাপারে মুখ না খুললেও, রোহিত স্পষ্ট নিজের ভাবনার কথা জানিয়েছেন। তিনি আরও বেশ কিছুদিন একদিনের ক্রিকেট এবং টেস্ট ক্রিকেটে নিজেকে দেখতে চান।

Continue Reading

ক্রিকেট

ভারতের টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়

Published

on

রে স্পোর্টজ নিউজ ডেস্ক: শনিবার হারারেতে জিম্বাবোয়ের বিরুদ্ধে চতুর্থ টি-টোয়েন্টি ম্যাচটি ১০ উইকেটে জিতে সিরিজ জিতল ভারত। পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ এক ম্যাচ বাকি থাকতেই জিতল শুভমন গিল ব্রিগেড। এদিন প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত কুড়ি ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৫২ রান তোলে সিকান্দার রাজার দল। জবাবে ভারত বিনা উইকেটে ১৫.২ ওভারে ১৫৬ রানে তুলে নিয়ে সহজেই ম্যাচের সাথে সিরিজও জিতে নেয়।

জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় ১৫৩ রানের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে খেলতে নেমে প্রথম থেকেই মারমুখী মেজাজে ছিলেন ভারতীয় দলের দুই ওপেনার যশস্বী জয়সওয়াল এবং অধিনায়ক শুভমন গিল। ব্যাট হাতে রীতিমতো তান্ডব চালান যশস্বী। পাওয়ার প্লে’তে প্রথম ছয় ওভারেই বিনা উইকেটে ৬১ রান তুলে ফেলে ভারত। বহু চেষ্টা করেও যশস্বীর বিধ্বংসী ব্যাটিং থামাতে পারেননি জিম্বাবোয়ের বোলাররা। দুই ওপেনারই সহজেই নিজেদের অর্ধশতরান পূর্ণ করেন। শেষ পর্যন্ত যশস্বী ৫৩ বলে ৯৩ রান করে অপরাজিত থাকেন। এই সময়ে ১৩টি চার এবং দুটি বিশাল ছয় মারেন ভারতীয় দলের এই ওপেনার। অন্যদিকে শুভমন ব্যাটিংয়ের সময় একটা দিক আগলে রাখেন। তিনি ৩৯ বলে ৫৮ রান করে অপরাজিত থাকেন।

প্রসঙ্গত এর আগে টস জিতে ভারত প্রথমে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়। শুরুর দিকে অবশ্য ভারতীয় বোলাররা বেশ মার খান। এই সময়ে প্রথম আট ওভারে একটিও উইকেট হারায়নি জিম্বাবোয়ে। তাদিওয়ানাসি মারুমনিকে ৩১ রান করে আউট হন। এছাড়া ওয়েসলি মাধেভারেকে ২৫ রানের ইনিংস খেলেন। এরপরে অধিনায়ক রাজা ছাড়া কেউ আর ভারতীয় বোলারদের বিরুদ্ধে টিকতে পারেননি। রাজা ২৮ বলে ৪৬ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলেন। এদিন ভারতের হয়ে অভিষেক ঘটে তুষারের। তবে শুরুটা খুব একটা ভালো হল না তাঁর। তিন ওভার বল করে ৩০ রান দিয়ে মাত্র একটি উইকেট পান তিনি। এছাড়া খলিল ২টি; শিবম দুবে, অভিষেক শর্মা এবং ওয়াশিংটন সুন্দর একটি করে উইকেট পান।

Continue Reading

Trending